আকাঙ্ক্ষা ও সফলতা:

আকাঙ্ক্ষা ও সফলতা

আকাঙ্ক্ষা ও সফলতা

✍আমরা সব সময় কোন কিছু করতে যাওয়ার আগেই সফলতা নিয়ে চিন্তা করি।আচ্ছা বলুনত আমাদের স্যার ইকবাল বাহার যেদীন থেকে তার কম্পানি শুরু করেছিলেন সেদীন থেকেই কি সফলতা পেয়েছেন? উত্তর : না। আমাদের সবারই যানা আছে স্যারের কম্পানি এক সময় বন্ধ হয়ে যাচ্ছিল। সবাই স্যারকে কম্পনানি থেকে বের করে দিয়ে কম্পানি বিক্রি করে দিতে চেয়েছিলেন।স্যারের বাড়ীর সবাই বলেছিল ভালইত আছো মাল্টি ন্যাশনাল কম্পানিতে চাকরি করো আর কি চাই? এসব ব্যাবসার চিন্তা মাথা থেকে ঝেরে ফেলো আর চাকুরিতে মন দাও। কিন্তু স্যার কি করেছিলেন? স্যার তার হৃদয়ের মধ্যে লালান করেছিলেন এক বিরাট আকাঙ্ক্ষা। সেই আকাঙ্ক্ষা থেকেই নিজের স্বপ্নকে বাস্তবে রুপ দেওয়ার জন্য নিয়েছিলেন কঠিন একটা সিদ্ধান্ত, আর সেটা হলো মাল্টি ন্যাশনাল কম্পানির শত সুযোগ সুবিধা থাকা চাকুরিটাকে ছেরে দেওয়া। কি ভাব ছেন, খুব সহজ হা? না মোটেও সহজ না। এত সুন্দর একটা চাকুরি ছেরে দিয়ে অজানার উদ্দেশ্যে পা রাখা তাও আবার যেখানে শুধুই লচ হচ্ছিলো। কিন্তু ওইযে বল্লামনা ছিল চাকরি না করে চাকরি দেওয়ার আকাঙ্ক্ষা। মনে রাখবেন প্রতিটি সমস্যাই একটি সুযোগ নিয়ে আসে।যারা ইতিবাচক মনোভাব নিয়ে চেষ্টা করে তারা প্রতিটি সমস্যার মধ্যে একটি সুযোগ খুজে পায়। মাঝে মাঝে দেখা যায় যে সমস্যাটি বাধা রুপে দেখা যাচ্ছে সেটা আসলে ছদ্মবেশে একটি সুযোগ। যেমনটা হয়েছিল আমাদের স্যার ইকবাল বাহারের সাথে। কিন্তু সমস্যাটিকে স্যার সুযোগ হিসেবে গ্রহন করেছিলেন মহান কিছু বা বিশাল কিছু তারাই অর্জন করে যারা নিজেদের মধ্যে বড় লক্ষ অর্জনের জন্য একটি তীব্র আকাঙ্ক্ষা গঠন করে। সাফল্য তাদের দ্বারাই অর্জিত হয় ও বজায় থাকে যারা ইতিবাচক মনোভাবের সাথে চেষ্টা করে যান। আমরা যখন আমাদের আকাঙ্ক্ষিত লক্ষকে নির্দিষ্ট করে কাজ করব তখন কাজ ও চেষ্টা করা আনন্দের হয়ে যাবে। কবি হেনলি বলেছেন,আমি আমার ভাগ্যের কর্তা,আমি আমার আত্মার চালক। আজ আমরা যাদের সফলতা আর অনেক টাকা দেখি সেটা কি একদীনে আর খুব সহজেই হয়েছে বলুন। এই পৃথিবীতে যদী কোন কাজে দক্ষ হতে চান তাহলে তিনটি জিনিস দরকার-- অনুশিলন...অনুশিলন...অনুশিলন। অনুশিলনের মাধ্যমে আমরা অর্জন করতে পারি দক্ষতা আর দক্ষতাই আনে ব্যাবসায় সফলতা। কিন্তু গেলে থাকারো কোন বিকল্প নাই।স্যারের ওই কথাগুলো মনে রাখতে হবে, স্বপ্ন দেখুন,সাহস করুন,শুরু করুন, লেগে থাকুন,সফলতা আসবেই। সবাইকে ধন্যবাদ।