A Brief Story About This Platform:

“Nijer Bolar Moto Ekta Golpo”- Make your own Story to Tell Others

I am an Entrepreneur, I have three Companies named OptiMax Communication Ltd (Nation-wide ISP & IIG), Aalaadin.Com (eCommerce) & Utv Entertainment.Com (Live Streaming Company) in the ICT sector working for the last 16 years where 200 nos Computer Engineers & from other discipline Youth are working here. I was a Teacher of renowned Private University, a Mentor & Inspirational Speaker on Entrepreneurship & on Values of Life. I also do News Presentation & Anchoring of Business Programs at TV & Radios.


There are 40 Million unemployment in Bangladesh. So we need lot of Young Entrepreneurs in our Country to reduce the huge unemployment crisis.


I am a simple human being but I can proudly say that I am a Good Human being. This not simple word “to be a good human being”. You need commitment & courage to be a good human being.


One day we all have to die. What we did in the past apart from “Me & My?” If anyone even could take the responsibility of one needed person in the entire life that is BIG achievement.


A Story never be formed if any one grow alone & get the success himself. The Story can only be made if anyone grow & help others to grow by donating blood to save a life, by taking the expenses of treatment to save a life, by making a hut for a needy people, by taking the responsibility of education of a poor child, even by planting a tree for others.


I have been speaking around 100 nos seminars, workshop & events/Universities as Inspirational Speaker for the last 3 years for Youths of Bangladesh. But at one point of time, I realized that we are talking knowledge initiative sessions over there for 1-2 hrs, they are getting motivations & directions and clapping but after leaving the sessions, they have been forgetting everything.


So, I have decided to do something that will make impact on their mind & habit for long time. I opened a Facebook group & invited the Youths from 64 Districts of all over the Bangladesh to do Online Classes/Sessions & Workshop on “How to be an Entrepreneur” & “Be a Good human First”.


I have started the journey of “Nijer Bolar Moto Ekta Golpo” online training on 1st January 2018 to 164 youths from 64 Districts as 1st batch for “consecutive 90 days sessions”. And have been doing batch after batches through online & offline. After completing 9th consecutive batches with consecutive 800 days, our percipients became 250,000 from 64 Districts & NRB from 50 Countries, it became the HISTORY in Bangladesh, may be in the World that “we have done consecutive 90 days & consecutive 800 Days online training on Entrepreneurship, Leadership & Values as free of cost as Volunteer”.


There were holidays, Eid days, festivals but we continued everyday till 90th day without any break. And it is 24 hrs open, because whenever I gave any topics, lessons or videos, they started comments & questioning as when as they feel free. I have to sort it out then I have to make videos to reply or reply in written.


Nijer Bolar Moto Ekta Golpo works on 3 issues:

1. 90 Days Online Training on Entrepreneurship “How to be an Entrepreneur”
2. Values, Leadership, various Skills & “to be a Good Human being”
3. Volunteering & Social Work


What we covered at the Courses of “To Be An Entrepreneur” & “To Be a Good Human being”:

1. At First to motivate them to be a good human being.
2. The mental preparation for to be an Entrepreneur.
3. Assessment of Strength of each one.
4. When to start & where to start the initiative.
5. Business idea competitions & product/Services selection.
6. How to get Funding for Business.
7. How to do Marketing for their products & services.
8. How to make a business proposal.
9. What is needed to form a Company.
10. Office Setup & recruitment.
11. What are the crisis after starting a business.
12. Values, Ethics, Leadership & Positivity.
13. Public Speaking for Investment, Sales & Leadership.
14. Social Work & Volunteering


These are covered SDG 4, 8 & 9 After 1st 90 day sessions, the same way I did 2nd, 3rd batch, 4th Batch, 5th batch, 6th, 7th 8th & 9th batches with consecutive 90 days sessions without any break to 250,000 from 64 Districts of Bangladesh & Non- Residents Bangladeshi (NRB) from 50 Countries and it is to be continued.


So far, I have trained to 250,000 Youths from 64 Districts of Bangladesh & NRB from 50 Countries in last 8th Batch at FREE of Cost. The outcome is 2400 youths have already been started their own ventures. But all 250,000 youths thinking level of their life have changed, they all are now positive, energetic, willing to help others & ready to change their life with good career.



My objective is, I will be attached with them rest of my life to build them up. When they will be in trouble in running business, I will advise them. Already our Facebook group & Page with 250,000+ youths is working as a market place. They are displaying/showcasing their products into the group. They are the buyer & sellers & Investors/partners within the group. It’s a massive networking scope for them.


I will create at least 7000 young entrepreneurs within next 1 year & also will create minimum 100,000 jobs opportunities for the unemployed youths.


This is the history that I never missed a single day without sessions in last 800 Days. And all the sessions are totally FREE, as this is my Social Work. They don’t need to pay nothing to me. I spend 3 hrs per day at online & off line for Youths.


I have already written a book on Entrepreneurship for youth with all the contents for 90 days sessions. The earnings from this book is being distributing to the poor child for education. We have launched a Website on these contents, so that millions of youths can learn the 90 days course at free of cost (www.urownstory-iqbal.org).






I have done 800 days consecutive workshops at free of cost on Entrepreneurship & Be the Good Human, the outcome so far:

1. We have completed 9 batches, consecutive 90 days sessions of each batch
2. We have created a Network 250,000 Youths though out the Country, out of them 28,000 are females
3. More than 50 Countries Non Resident Bangladeshis are involved into our Online free education
4. More than 140 scholars & established entrepreneurs have taken online sessions along with me.
5. We have created 2400 new Entrepreneurs from our training, out of them 250 nos are female
6. We have made a house for a poor homeless youth at Bogra District & Tk 2 laks funds to 6 youths to start their ventures.
7. We have donated 10,000 bags bloods, planted 10,000 trees & feed 15,000 street poor child & old peoples
8. We have done Ifter Party at all the 64 Districts for 15,000 poor & deprived peoples during last Ramadan.
9. We have distributed food items to 1000 distressed families effected in the floods during Jul’19.
10. We have distributed 4000 Blanket & Winter Dresses to the winter effected poor peoples throughout the Country.
11. We have created online market for all of them to display their products, doing huge number of buy & sales by them from here – this is only platform where youths can learn, becoming Entrepreneurs & getting sales of their products or services from here. And also getting investment & partners from the Platform for their Business. They are getting 20% to 60% of their monthly sales from this online Platform.
12. They are interacted with 30,000 comments here, sharing ideas, making partners, doing internal funding & also working as buyers & sellers.
13. 500 volunteers are working for the platform throughout the World.se
14. So far, we have done 1000 Meetup & conference at 55 Districts & 25 Countries in last 2 years.
15. We have done 3 BIG day-long Entrepreneurship Conference at Dhaka with total 6000 percipients. And also done semi-big conferences at Chattragram, Feni, Dhaka, Gazipur, Narshindi & Brammanbaria.

“নিজের বলার মত একটা গল্প”

“৬৪ জেলা ও ৫০ টি দেশ থেকে ২৫০,০০০ জন তরুণ-তরুণীকে নিয়ে টানা ৯০ দিন ব্যাপী উদ্যোক্তা তৈরি ও মূল্যবোধ চর্চার অনলাইন প্রশিক্ষণ কর্মশালা ”

নিজে স্বপ্ন দেখি ও তরুণদের স্বপ্ন দেখাই – এটা আমার সামাজিক দায়বদ্ধতা যা আমি কোন প্রকার পারিশ্রমিক ছাড়া করি এবং প্রতিদিন ২-৩ ঘণ্টা সময় ব্যয় করি এই কাজে। প্রায় অসম্ভব একটি স্বপ্ন আজ সারা বাংলাদেশের ৬৪ জেলার ও ৫০টি দেশের প্রবাসী বাংলাদেশী সহ ২৫০,০০০ তরুণ-তরুণীদের মাঝে ছড়িয়ে গেলো।


৩টি বিষয় নিয়ে কাজ করে অনলাইন প্লাটফর্ম “নিজের বলার মতো একটা গল্প” – “চাকরী করবো না চাকরী দেব” ঃ ১। উদ্যোক্তা বিষয়ক অনলাইনে টানা ৯০ দিন করে প্রশিক্ষণ অর্থাৎ একজন ইয়ুথকে উদ্যোক্তা হতে যা যা প্রয়োজন তার প্রশিক্ষণ প্রদান এবং ৬৪ জেলায় ও ৫০ দেশে উদ্যোক্তা মিট আপ ও সম্মেলন। ২। মূল্যবোধ, লিডারশীপ, বিভিন্ন বিষয়ে স্কিলস ও একজন ভালোমানুষ হয়ে উঠার চর্চা কেন্দ্র। ৩। ভলান্টিয়ারিং এবং সোশ্যাল ওয়ার্ক ও মানবিক কার্যক্রম


গত ৮০০ দিন ধরে ৯ টি ব্যাচের মাধ্যমে চলেছে আমাদের এই অনলাইন কর্মশালা। একদিনের জন্যও আমাদের এই কর্মশালা বন্ধ ছিল না, শুক্রবার, শনিবার, সরকারী ছুটি এমনকি ঈদের দিনও আমরা সেশান করেছি। এটা সারা বিশ্বে একটি ইতিহাস – এত লম্বা এবং টানা ৯০ দিনের এক একটা ব্যাচ ও টানা ৮০০ দিনের কোন প্রশিক্ষণ কর্মশালা পৃথিবীতে কেউ কোনদিন করেনি।


আমরা শুধু স্বপ্ন দেখাইনি, কিভাবে স্বপ্নকে বাস্তবায়ন করতে হয় তা শিখিয়েছি টানা ৯০ দিন ধরে এক একটি ব্যাচে। ৯০ দিন ধরে আমি শুধু উদ্যোক্তা হবার সকল কলা-কৌশল শিখাইনি, শিখিয়েছি কিভাবে একজন ভালোমানুষ হয়ে বুক ফুলিয়ে বাঁচে থাকতে হয়, কিভাবে সমাজের জন্য ও দেশের জন্য কাজ করতে হয় এবং সফল হতে হলে দরকার মা-বাবার দোয়া। গত ৮০০ দিনে একদিনের জন্যও আমাদের এই অনলাইন কর্মশালা বন্ধ ছিল না, যা একটি ইতিহাস। এটা শুরু হয়েছিল জানুয়ারি ১, ২০১৮ তে মাত্র ১৬৪ জন তরুণদের নিয়ে বাংলাদেশের ৬৪ জেলা থেকে, যার শিক্ষার্থীর সংখ্যা এখন ২৫০,০০০। সম্পূর্ণ বিনা ফি তে এই অনলাইন প্রশিক্ষণ কর্মশালার ৮০০ দিনের অর্জন ঃ
# আমরা ৮টা ব্যাচ শেষ করেছি টানা ৯০ দিন করে, চলছে ৯ম ব্যাচ
# বাংলাদেশের ৬৪ জেলার ২৫০,০০০ তরুণদের বিশাল নেটওয়ার্ক তৈরি করেছি, যার মধ্যে ২৫,০০০ জন নারী
# বিশ্বের ৫০ টিরও বেশী দেশের প্রবাসী বাংলাদেশীরা যুক্ত আছে আমাদের এই প্লাটফর্মে।
# ১৪০ জন সফল ও গুণী মানুষকে এনে তাঁদের জন্য অনলাইনে কর্মশালা করেছি। এই কৃতি মানুষগুলোর কাছে কৃতজ্ঞ।
# ২৪০০ উদ্যোক্তা তৈরি করেছি, যার মধ্যে ২৫০ জন নারী উদ্যোক্তা
# বগুড়ার একজন অসহায় গৃহহীনকে ১টা ঘর বানিয়ে দেয়া হয়েছে
# ২ জন গরীব তরুণকে ৫০,০০০ টাকা ও ৪ জনকে ২৫,০০০ টাকা করে মূলধন দিয়ে একটা ব্যবসা দাড় করিয়ে দিয়েছি।
# দেশের ৬৪ জেলায় সবাই মিলে প্রায় ১০,০০০ গাছ, ১০ হাজার ব্যাগ রক্ত ও ১৫,০০০ অসহায় শিশু ও বৃদ্ধকে ১ বেলা খাবারের ব্যবস্থা করেছি।
# দেশের ৬২ জেলায় সবাই মিলে একযোগে গত রমজানে প্রায় ১৫,০০০ এতিম, অসহায় শিশু ও বৃদ্ধকে ইফতার করিয়েছি।
# দেশের বিভিন্ন জেলায় বন্যা কবলিত ১০ টি পরিবারের মাঝে তাঁদের ভেঙ্গে যাওয়া ঘরের জন্য টিন বিতরণ ও প্রায় ১৫০০ পরিবারের জন্য খাদ্য সামগ্রী বিতরণের ব্যবস্থা করা হয়েছে।
# দেশের বিভিন্ন জেলায় শীতার্তদের মাঝে প্রায় ৪০০০ বিতরণের ব্যবস্থা করা হয়েছে।
# আমাদের গ্রুপে একটা অনলাইন বাজার তৈরি করে দিয়েছি, যেখানে প্রতিদিন গড়ে ১০০টিরও বেশী অর্ডার কেনা বেচা হয়, যা আগামী ৬ মাসের মধ্যে ২০০ ছাড়িয়ে যাবে। এই প্লাটফর্মের সদস্যরা তাঁদের ক্রেতা-বিক্রেতা। আমাদের উদ্যোক্তারা আমাদেরই প্লাটফর্ম থেকে তাঁদের মাসিক বিক্রয়ের ২০%-৫০% সেল পাচ্ছে, কারণ আমাদের ২৫০,০০০ শিক্ষার্থী তাঁদের ক্রেতা।
# এখানে প্রতিদিন ৩০,০০০ এরও বেশী কমেন্ট আদান প্রদান হয়, যার ১০০% পজিটিভ চিন্তা।
# গত ৮০০ দিনে আমরা ২৫০,০০০ পজিটিভ মানুষ ও ভালোমানুষের চর্চা করতে পেরেছি।
# সারা বাংলাদেশের ৬৪ জেলা ও ৫০টি দেশে আমাদের আছে ৫০০ ভলান্টিয়ার।
# প্রতি সপ্তাহে সারা দেশে ও বিদেশে মিটআপের মধ্য দিয়ে চলছে আর অফলাইন কার্যক্রমও, এই পর্যন্ত ১০০০ মিট আপ ও সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়েছে।
৯০ দিন ধরে শেখা, পার্টনার পাবার সুযোগ, ব্যবসা করা, কেনাবেচার সুযোগ, ভলান্টিয়ারিং, সামাজিক কাজ এবং ভালোমানুষি চর্চা সব একসাথে একই প্লাটফর্মে, এরকম সুযোগ আমাদের দেশে আর কোথাও নেই !


আমাদের লক্ষ্য আগামী ১ বছরের মধ্যে ১০০,০০০ মানুষের কর্মসংস্থান তৈরি করা অন্তত ৭০০০ উদ্যোক্তা হওয়ার মধ্য দিয়ে। “চাকরী করবো না চাকরী দেব”


প্রায় ২৪০০ জন উদ্যোক্তা হবার জন্য ইতিমধ্যেই কাজ শুরু করে দিয়েছেন। যারা বিজনেস বন্ধ করে দিয়েছিলেন তাঁরা আবার শুরু করেছেন, যারা আগে শুরু করা বিজনেসে ভাল করছিলেন না তাঁরা এখন আলোর মুখ দেখতে শুরু করেছেন এবং অনেকে ভেবেছিলেন জীবনে চাকরী করা ছাড়া তাঁকে দিয়ে আর কিছু সম্ভব নয়, তিনিও চাকরী ছেড়ে উদ্যোক্তা হবার কথা ভাবছেন, কেউ কেউ শুরু করে দিয়েছেন।


যারা স্বপ্ন দেখেন নিজে কিছু একটা করতে চান, পরিশ্রম করতে চান, যাদের কোন তাড়াহুড়া নাই ও নিজের জীবনটাকে বদলে চান – আমরা শুধুমাত্র তাদেরকে নিয়ে কাজ করছি


আমাদের সাথে কাজ শেখার জন্য সবচেয়ে বড় যোগ্যতা হল - আপনি একজন ভালোমানুষ। ৯০ দিনের কর্মশালাটি হচ্ছে অনলইনে প্রতিদিন। পুরো প্রকল্পটি করা হচ্ছে “বিনা ফি” তে অর্থাৎ প্রশিক্ষণার্থীদের থেকে কোন টাকা দেয়া লাগছে না যেহেতু এটা আমার সামাজিক কাজের অংশ।


বাংলাদেশের উদ্যোক্তা বিষয়ক ব্যতিক্রমী অনলাইন প্রশিক্ষণ কার্যক্রম "নিজের বলার মতো একটা গল্প" এর তৃতীয় বর্ষে পদার্পণ, ও ২৫০,০০০ তরুণ-তরুণীকে বিনামূল্যে প্রশিক্ষণ প্রদান উপলক্ষে জানুয়ারি ৪, ২০২০ এ ঢাকায় মিরপুর ইনডোর স্টেডিয়ামে অনুষ্ঠিত হল এই অনলাইন প্লাটফর্মের ৬৪ জেলা থেকে ৪০০০ শিক্ষার্থীদের নিয়ে "উদ্যোক্তা সম্মেলন"। এতে ছিল ১৫০টি উদ্যোক্তাদের স্টল, রক্তদান কর্মসূচী, পুরষ্কার প্রদান ও “নিজের বলার মতো একটা গল্প” বইয়ের ৩য় সংস্করণের মোড়ক উন্মোচন।


নিজের বলার মত একটা গল্প' অনলাইন প্ল্যাটফর্ম থেকে প্রশিক্ষণ নিয়ে সাফল্যের দৃষ্টান্ত স্থাপন করেছেন ২ লাখ তরুণ-তরুণী। দেশের ৬৪টি জেলা এবং ৫০টি দেশে থাকা প্রবাসী বাংলাদেশিদের অংশগ্রহণে এ প্ল্যাটফর্ম এখন দেশের বৃহত্তম অনলাইন 'উদ্যোক্তা' প্রশিক্ষণ কেন্দ্র। এর দ্বিতীয় বর্ষপূর্তি হয়ে গেল গতকাল শনিবার মিরপুর ইনডোর স্টেডিয়ামে। এদিন সমবেত হয়েছিলেন প্রায় চার হাজার তরুণ উদ্যোক্তা। এখানে উদ্যোক্তাদের ১৫০টি স্টল স্থান পায়। পুরো আয়োজনে মিডিয়া পার্টনার ছিল দি ডেলি স্টার।


অনুষ্ঠানে উপস্থিত হয়ে উচ্ছ্বসিত ডাক ও টেলিযোগাযোগ মন্ত্রী মোস্তাফা জব্বার। তরুণ উদ্যোক্তাদের উদ্দেশে তিনি বলেন, 'আপনাদের সফলতার গল্পই হবে আগামী দিনে বাংলাদেশের গল্প।


উদ্যোক্তা সম্মেলন উদ্বোধন করেন জনাব আতিকুল ইসলাম মাননীয় সদ্য সাবেক মেয়র, ঢাকা (উত্তর)। অনুষ্ঠানে ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশনের সদ্য সাবেক মেয়র আতিকুল ইসলাম বলেন, একটি অনলাইন প্ল্যাটফর্মের মাধ্যমে এত বিপুল সংখ্যক উদ্যোক্তা তৈরি করা যায়, এটা সত্যিই অবাক করার মত বিষয়। অনলাইনের যথাযথ ব্যবহার হলে তার সুফল জনজীবনকে কীভাবে বদলে দিতে পারে এটা তারই প্রমাণ।


ইকবাল বাহার


সিইও ও ডিরেক্টর, অপটিম্যাক্স কমিউনিকেশান লিঃ
ম্যানেজিং ডিরেক্টর, আলাদীন ডট কম
ম্যানেজিং ডিরেক্টর, ইউ টিভি লাইভ
ইন্সপিরেশানাল স্পিকার, নিউজ প্রেজেন্টার ও বিজনেস প্রোগ্রাম এঙ্কর
প্রতিষ্ঠাতা, নিজের বলার মত একটা গল্প
Facebook ID : https://www.facebook.com/iqbal.bahar.10
Facebook Group: https://www.facebook.com/groups/youngentrepreneursbdiqbal/
Youtube: https://www.youtube.com/channel/UCxvtB0vjoabTeK-JdajFyYA/videos?view_as=subscriber


ইকবাল বাহার, একজন উদ্যোক্তা, বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক, মেন্টর, ইন্সপিরেশানাল স্পিকার, নিউজ প্রেজেন্টার ও বিজনেস প্রোগ্রাম অ্যাংকর। তিনি চার্টার্ড আকাউনটেন্সি (ইন্টার), এম কম ও এমবিএ করেন। ইন্টারনেট কোম্পানিতে চাকরী দিয়ে তার কর্ম জীবন শুরু করেন। এক সময় সেই রকম বিশাল একটি ইন্টারনেট কোম্পানির মালিক হন তিনি। চাকরী জীবনেও অত্যন্ত সফল ইকবাল বাহার খুব অল্প বয়সে একটি মাল্টিনেশানাল কোম্পানির জেনারেল ম্যানেজার হন।


মাল্টিনেশানাল কোম্পানির লোভনীয় চাকরী থেকে ইস্তফা দিয়ে “চাকরী করবো না চাকরী দেব” এই দৃঢ় প্রত্যয় নিয়ে কাজ শুরু করেন নিজের কোম্পানিতে। উদ্যোক্তা হওয়ার স্বপ্ন দেখেন চাকরী জীবনের শুরুতেই। উদ্যোক্তা হয়ে উঠার গল্পটা এত সহজ ছিল না। ছিল ব্যাপক বাধা, অনিশ্চয়তা ও হেরে যাবার সম্ভাবনা। কিন্তু তিনি ছিলেন দৃঢ়চেতা ও ব্যাপক লেগে থাকা একজন সপ্নবাজ মানুষ। আজ তিনি অপ্টিমেক্স কমিউনিকেশান লিমিটেড, আলাদীন ডট কম ও ইউটিভি এন্টারটেইনমেন্ট ডট কম নামক ৩টি কোম্পানির উদ্যোক্তা ও ম্যানেজিং ডিরেক্টর। সৃষ্টি করেছেন ২০০ মেধাবী তরুণদের কর্মসংস্থান।


উদ্যোক্তা তৈরির ৯০ দিনের কোর্সে যা যা আছে ঃ
১। যারা স্বপ্ন দেখেন নিজে কিছু একটা করতে চান, পরিশ্রম করতে চান, যাদের কোন তাড়াহুড়া নাই ও নিজের জীবনটাকে বদলে চান – আমরা শুধুমাত্র তাদেরকে নিয়ে কাজ করছি।
২। আমাদের সাথে কাজ শেখার জন্য সবচেয়ে বড় যোগ্যতা হল - আপনি একজন ভালোমানুষ।
৩। পুরো কার্যক্রমটা হচ্ছে অনলইনে প্রতিদিন – ৬৪ জেলা ও ৫০ টি দেশ থেকে প্রবাসীরা সহ সবাই অনলাইনে অংশ গ্রহণ করছে।
৪। প্রতিদিন ১ টা করে পোস্ট বা ভিডিও বা নির্দেশনা বা হোমওয়ার্ক দেয়া হচ্ছে আমাদের ক্লোজড গ্রুপে ও পেইজে।
৫। এটি হল ৯০ দিনের অনলাইনে ও সরাসরি প্রশিক্ষণ কার্যক্রম। প্রত্যেককে আলাদা আলাদা ভাবে ও গ্রুপে প্রশিক্ষণ দেয়া হচ্ছে।
৬। ফেসবুক লাইভে সপ্তাহে ২ দিন করে সেশান করা হচ্ছে Utv Live.tv থেকে।
৭। পুরো প্রকল্পটি করা হচ্ছে “বিনা ফি” তে অর্থাৎ প্রশিক্ষণার্থীদের থেকে কোন টাকা দেয়া লাগছে না – যেহেতু এটা আমার সামাজিক কাজের অংশ।


এই প্রকল্পকে সারা দেশের লাখ লাখ তরুণ-তরুণীদের মাঝে ছড়িয়ে দেয়ার জন্য ৯০ দিনের সেশানের কন্টেন্ট গুলো নিয়ে একটা বই প্রকাশ করা হয়েছে গত একুশে বই মেলায়। বইয়ের সত্ত্ব বাবদ যে টাকা আমি পাচ্ছি তার পুরোটাই ব্যয় হচ্ছে গরীব ও অসহায় শিশুদের পড়াশুনার জন্য।


যা যা শেখানো হয় ৯০ দিনে?


১। উদ্যোক্তা হবার মানসিক প্রস্তুতি ও অনুপ্রেরণা
২। কিভাবে শুরু করবেন? কি কি লাগবে?
৩। বিজনেস আইডিয়া কিভাবে নিবেন?
৪। খুব অল্প পুঁজিতে কি বিজনেস শুরু করা যায়?
৫। আপনার মুল্ধন কিভাবে জোগাড় করবেন?
৬। কিভাবে বিজনেস শুরু করবেন?
৭। অফিস চালানোর দক্ষতা
৮। কিনবেন/উৎপাদন কিভাবে করবেন, বিক্রয় করবেন কোথায়? কাস্টমার কারা?
৯। মার্কেটিং প্ল্যান এবং নেটওয়ার্কিং
১০। মূল্যবোধ বৃদ্ধি, শেয়ারিং ও সামাজিক দায়বদ্ধতা
১১। সবার আগে একজন ভালোমানুষ হওয়া
১২। লিডারশীপ ও মূল্যবোধ
১৩। কথা বলার জড়তা কাটানো, সবার সামনে কথা বলতে পারা
১৪। সামাজিক কাজ ও ভলান্টিয়ারিং


তবে এটা নিশ্চিত করে বলতে পারি ৯০ দিন পর আপনাদের এই ২৫০,০০০ জন সবার নিজের প্রতি বিশ্বাস, সাহস ও স্বপ্ন ভিন্ন মাত্রা পাবে এবং শুরু হবে বদলে যাওয়া একজন মানুষ।


বিজনেস আপনার মুল্ধন আপনার, আমরা আপনাকে স্বপ্ন দেখাব ও কিভাবে স্বপ্ন বাস্তনায়ন করতে হয় তার কৌশল শিখিয়ে দিব।


চাকরী করবো না চাকরী দেব - BE UR BOSS


৩ টি কারণে উদ্যোক্তা তৈরির এই উদ্যোগটি অনন্য, ব্যতিক্রম ও বাংলাদেশে এই প্রথমঃ

১। সারা বাংলাদেশ অর্থাৎ ৬৪ জেলা ও ৫০টি দেশ থেকে ইতিমধ্যেই ২৫০,০০০ জন তরুণ-তরুণীকে উদ্যোক্তা ও মূল্যবোধ বিষয়ক প্রশিক্ষণ প্রদান।
২। টানা ৯০ দিনের অনলাইনে অংশগ্রহণ মুলক কর্মশালা (প্রতি শুক্র, শনিবার ও যে কোন সরকারী ছুটির দিন সহ) , যার ইতিমধ্যেই ৯টি ব্যাচ শেষ হয়েছে এবং
৩। এই পুরো কার্যক্রমটি হচ্ছে বিনামূল্যে অর্থাৎ প্রশিক্ষণার্থীদের থেকে কোন ফি ছাড়া।


আর একটি ব্যতিক্রম হচ্ছে, এই প্লাটফর্মে প্রথম থেকে গত ৯টা ব্যাচে যারাই কর্মশালা করেছেন, তারা সবাই প্রতিনিয়ত আমাদের সাথে কানেক্টেড আছেন, কারণ বিজনেস শুরু করার পর যে যে সমস্যা গুলো তৈরি হয় তা সমাধানেরও পরামর্শ দিচ্ছি সবসময়।


তারা এই গ্রুপে তাঁদের পণ্য/সার্ভিসের বিজ্ঞাপন দিচ্ছে এবং এখান থেকেই তারা কাস্টমার পাচ্ছে এবং ক্রয় বিক্রয় হচ্ছে। তারা একে অন্যের পার্টনার/ইনভেস্টর হচ্ছে। কারো কাছে আইডিয়া আছে কিন্তু টাকা নেই, সে এখানে আইডিয়া সেল করে পার্টনার নিচ্ছে।


৯০ দিন ধরে শেখা, পার্টনার পাবার সুযোগ, ব্যবসা করা, কেনাবেচার সুযোগ, ভলান্টিয়ারিং, সামাজিক কাজ এবং ভালোমানুষি চর্চা সব একসাথে একই প্লাটফর্মে, এরকম সুযোগ আমাদের দেশে আর কোথাও নেই !


শুর থেকেই আমাদের প্লাটফর্ম উদ্যোক্তা বিষয়ক প্রশিক্ষণ ও ভালোমানুষ হতে উদ্ভুদ্ধ করা সহ বিভিন্ন সামাজিক কাজ করে আসছে। এটাকে এখন থেকে প্রতিনিয়ত ও প্রাতিষ্ঠানিকভাবে দেশব্যাপী ছড়িয়ে দেবার জন্য আমরা সিদ্ধান্ত নিয়েছি।


অনলাইনে প্রশিক্ষণ গ্রহণ করার জন্য আমাদের Facebook Page: https://www.facebook.com/Iqbalbahar28/ ও Website: http://www.urownstory-iqbal.org/।


আগামী ৫ বছরে “নিজের বলার মতো একটা গল্প” এর সামাজিক কাজের পরিকল্পনাঃ

১। আমাদের প্রধান সামাজিক কাজ হবে সারা দেশের গরীব (যারা যাকাতের পাবার পর্যায়ে পরে) ও শিক্ষিত/অর্ধ শিক্ষিত ৫০০ তরুণদেরকে একটা ছোট ব্যবসা তৈরি করে দিয়ে স্বাবলম্বী করা এবং তা সারা বছর মনিটরিং করা। প্রথমে তাঁদেরকে ৯০ দিনের উদ্যোক্তা ও ভালোমানুষ হওয়া বিষয়ে প্রশিক্ষণ দেয়া হবে। এই অর্থ আমরা সবাই প্রত্যেকে ১০০ টাকা করে (সর্বোচ্চ ৫০০ টাকা বছরে) সাহায্য করে ও আমাদের বর্তমান ও হবু উদ্যোক্তাদের এবং আমাদের সবার পরিচিত অন্য ব্যবসায়িদের যাকাতের অর্থ সংগ্রহ করে এই প্রকল্প সারা বছর ধরে বাস্তবায়ন করা। আমি ব্যক্তিগতভাবে আমার যাকাতের ফান্ড থেকে বছরে ২০০,০০০ টাকা আমাদের এই সামাজিক কার্যক্রম তহবিলে প্রদান করবো। এই গ্রুপ থেকে ২১ সদস্যের ট্রাস্টি বোর্ড এই কার্যক্রম পরিচালনা করবে। প্রতি ২ বছর পর পর এই বোর্ড পুনর্গঠন হবে এবং নতুনরা আসবে।
২। রক্ত দান ও ব্লাড ব্যাংক প্রতিষ্ঠা
৩। প্রতি বছর উদ্যোক্তা সম্মেলন এবং ৪ জন প্রতিষ্ঠিত তরুণ উদ্যোক্তা ও ৬ জন গ্রামের/মফস্বলের উদ্যোক্তাদের সম্মাননা প্রদান। এছারাও বেস্ট কোর ভলান্টিয়ার, ডিসট্রিক্ট এম্বাসেডর, ক্যাম্পাস এম্বাসেডর, কান্ট্রি এম্বাসেডর ও ভলান্টিয়ারদের সম্মাননা দেয়া হবে।
৪। রমজান মাসে অসহায় ও এতিমদের জন্য ইফতার ও রাতে রাস্তায় ঘুমন্ত মানুষদের জন্য সেহেরী বিতরণ
৫। বর্ষায় দেশব্যাপী গাছ লাগানো কর্মসূচী এবং দেশব্যাপী সচেতনেতা বিষয়ক বিভিন্ন কার্যক্রম ও স্বেচ্ছাশ্রম
৬। দেশের যে কোন প্রাকৃতিক দুর্যোগে সহযোগিতার হাত বাড়িয়ে দেয়া এবং
৭। দেশের বিভিন্ন অঞ্চলের মেধাবী অথচ অসহায় ও গরীব ৫০০ শিক্ষার্থীদের খুঁজে তাঁদের এইচএসসি পর্যন্ত লেখাপড়ার খরচের ব্যবস্থা করা এবং তা মাসিক ভিত্তিতে মনিটরিং করা। ত বাড়িয়ে দেয়া এবং


এই সব কাজে সহযোগিতা ও বাস্তবায়ন করবে আমাদের কোর ভলান্টিয়ার, ডিসট্রিক্ট এম্বাসেডর, ক্যাম্পাস এম্বাসেডর, কান্ট্রি এম্বাসেডর ও দেশব্যাপী স্বেচ্ছাসেবী তরুণরা। সবাই একটা টিম হিসাবে কাজ করবে।


একটি ইন্টারন্যাশনাল বিজনেস ম্যাগাজিন "দি ইনক্যাপ" এর মার্চ ২০২০ সংখ্যায় "নিজের বলার মত একটা গল্প" নিয়ে প্রচ্ছদ ও কাভার স্টোরি। বাংলাদেশ সহ আরও ৫ টি দেশ USA, UK, China, India, Singapore এ মাসিক এই ম্যাগাজিনটি পাওয়া যাচ্ছে।"


ব্যক্তি ইকবাল বাহার


প্রত্যেক মানুষের জীবনে সাকসেসের পিছনে একটা টার্ননিং পয়েন্ট থাকে, একটা ছোট গল্প থাকে। আমার জীবনেও একসময় অনেকেই মনে করতো আমাকে দিয়ে কিছু হবে না! অনেক কষ্ট পেতাম, নিজেকে আয়নায় দেখে মনে হতো এটা তো আমি নই। ইঞ্জিনিয়ার হবার স্বপ্ন ছিল, চান্স পাইনি। তারপর মাস্টার্স ও সিএ পড়লাম, এরপর এমবিএ। ক্যারিয়ার শুরু করলাম হিসাব বিভাগে, ভালো লাগলো না, তারপর মার্কেটিং অবশেষে উদ্যোক্তা। গ্রামীণ সাইবারনেট আমার জীবনের প্রথম চাকুরী। চাকুরীর ৩ মাস বয়সে আমি বিয়ে করে ফেলি। গ্রামীণ সাইবারনেট এ চাকুরী না করলে ইন্টারনেট তথা তথ্য প্রযুক্তিটা ভালো করে শিখা হতো না বা প্রযুক্তির প্রতি একটা ভালবাসা তৈরি হতো না । গ্রামীণ সাইবারনেট এ আমি ছিলাম আকাউনটস ম্যানেজার হিসাবে। মাথার মধ্যে একটা স্বপ্ন সব সময়ে তাড়া করতো, নিজের একটা কোম্পানি থাকতে হবে, সেখানে অনেক মানুষ কাজ করবে। ৫ বন্ধু মিলে এরকম একটা স্বপ্নের বাস্তবায়ন শুরুও করে দিয়েছিলাম। কিন্তু কেউ আর চাকরী ছাড়তে রাজি না হওয়ায়, তা শুধু স্বপ্নই রয়ে গেল। গ্রামীণ সাইবারনেটে জব না করলে অপটিম্যাক্স কমিউনিকেসান লিমিটেড হতো না ।

গ্রামীণ সাইবারনেট না ছাড়লেও অপটিম্যাক্স হতো না, তাহলে হয়তো গ্রামীণ সাইবারনেটেই বা অন্য কোথাও জব করা হতো । তারপর গেলাম গ্রামীণ শক্তিতে অ্যাসিস্ট্যান্ট জেনারেল ম্যানেজার হিসাবে । গ্রামীণ শক্তিতে না গেলে অপটিম্যাক্স হতো না কারণ ওখানে গিয়ে স্বপ্ন সত্যি করার কাজ শুরু করি। তারপর আর থামতে হয় নি। তারপর শুরু হল অপটিম্যাক্স এর যাত্রা । কিন্তু যাত্রাটা অতটা শুভ ছিল না। ১৮ মাস এর মাথায় কোম্পানি বন্ধ হবার উপক্রম হল। যারপর নাই চ্যালেঞ্জ নিয়ে ও অস্বাভাবিক পরিশ্রম করে ও মেধা খাঁটিয়ে আবার হাটি হাটি পা পা করে পরবর্তী ২-৫ বছরে ঘুরে দাঁড়ালাম। মাঝখানে কিছুদিন সিঙ্গার বাংলাদেশ লিমিটেড এ জব করেছি জেনারেল ম্যানেজার হিসেবে । উদ্দেশ্য ছিল মাল্টিনেশানাল কোম্পানিতে জব এর স্বাদ নেয়া ও কর্পোরেট ওয়ার্ল্ডের কিছু অভিজ্ঞতা অর্জন করা। এটা ছিল অপটিম্যাক্স এর শুরুর দিকে। তখন আমি সিঙ্গার বাংলাদেশ এ জব ও অপটিম্যাক্সের কাজ দুটাই একসাথে করতাম। প্রতিদিন গড়ে ১২-১৪ ঘণ্টা কাজ করতাম, এখনো তাই করি।

সিঙ্গার বাংলাদেশের জবে আমার অভিজ্ঞতা অপটিম্যাক্সের গ্রোথ এ অনেক বেশী সাহায্য করেছে। মাঝখানে আরও একটা কোম্পানি তৈরি করেছিলাম, অতিমাত্রায় আয় রোজগারের সম্ভবনা দেখা দেয়ায়, দ্রুত ঐ কোম্পানি থেকে নিজেকে গুটিয়ে নেই, কারণ সবসময় সৎ থাকতে বাবা শিখিয়েছেন। বুক ফুলিয়ে চলার আশায় ভালোমানুষ হবার লোভটা সবসময় জাগিয়ে রেখেছি। বেশ কয়েকবার দেশের বাইরে সেটেল হবার সুযোগ থাকলেও যাইনি। কারণ আমার দেশে থাকতেই বেশী ভালো লাগে কিউট যতসব সুবিধা ও অসুবিধা নিয়ে। একদিন ফুড়ুৎ করে মরে যাবো – মনে রাখার মতো কিছু একটা তো করা দরকার। জীবনের লক্ষ্য ঠিক করে ফেলেছিলাম চাকরী করবো না, চাকরী সৃষ্টি করবো। জীবনে সফলতা মানে শুধু বাড়ি, গাড়ী ও টাকা নয়, সফলতা মানে সুশিক্ষা, সুস্বাস্থ্য, সুখ ও সম্পদ আর একজন ভালোমানুষ। আজ আমি ২০০টি পরিবারের হাসি মুখ প্রতিদিন দেখতে পাই – এটাই আমার কাছে সফলতা।

আমার উদ্যোগগুলুর সর্বশেষ সংযোজন আলাদীন ডট কম। প্রযুক্তির মাধমে একটু অন্যরকম সেবা দেয়ার প্রত্যয়। আমার কাছে এখন নতুন কিছু করা মানে নিজের সাথে আরও কিছু মানুষকে স্বপ্ন দেখানো। নিজে স্বপ্ন দেখি ও তরুণদের স্বপ্ন দেখাই – এটা আমার সামাজিক দায়বদ্ধতা যা আমি কোন প্রকার পারিশ্রমিক ছাড়া করি এবং অনেক সময় দিই। গত ২ বছরে প্রায় ২০০,০০০ জন তরুণের মাঝে এই স্বপ্ন ছড়িয়ে দিতে পেরেছি – এটাই বিশাল প্রাপ্তি। তাঁদের মধ্যে ১০০০ জন উদ্যোক্তা/ব্যবসায়ী হয়ে এখন অন্যদেরকে চাকরী দিচ্ছে। এই স্বপ্ন এখন আরও অনেক বড় হয়েছে। আগামী ১ বছরে মোট ৩০০০ জন উদ্যোক্তা/ব্যবসায়ী তৈরি করবো – তাঁরা একদিন ১০০,০০০ মানুষের কর্ম সংস্থান তৈরি করবে। এবং নেটওয়ার্ক তৈরি করবো ৫০০,০০০ ভালোমানুষ ও পজিটিভ মানুষের। আর টিভি নিউজ প্রেজেনটেশান ও বিজনেস প্রোগ্রাম উপস্থাপনা, ওটাতো শখ করে করা।

এসএসসি পাশ করেই চামেলি আমার জীবনে চলে আসে, আমাদের বিবাহ হয়। তারপর তার এইসএসসি, গ্রাজুয়েশান, মাস্টার্স, ফ্যাশান ডিজাইনিং, আবার এমবিএ করে আমার পাশে পাশে থেকেই। এখন সে একটা অফিসের সিইও আর এটিএন বাংলা টিভি নিউজ প্রেজেণটার। আমার বউ – চামেলি আমার জীবনে না এলে এবং ওর সহযোগিতা না পেলে আমার জীবনে কিছুই হতো না। সিঙ্গার বাংলাদেশে যোগ দেয়ার ৬ মাসের মাথায় ও অপটিম্যাক্সের শুরুর দিকের মারাত্মক ক্রাইসিসের সময় আমার প্রাণ প্রিয় বাবা মারা গেলেন । আমার চারিদিকে যেন শুধু অন্ধকার । তারপর থেকে আমার মা আমার কাছে । এই ২জন মানুষের দোয়া আমার জীবনের সব সফলতার চাবিকাঠি । জীবনের প্রায় সকল সার্টিফিকেট পরীক্ষায় দ্বিতীয় শ্রেণী পেলেও ক্যারিয়ার, পরিবার, আত্মীয় পরিজন ও বন্ধু বান্ধব ও নিজের কাছে প্রথম শ্রেণীতে থাকাটা কখনো হাত ছাড়া করিনি। সর্বোপরি আমার কাছে সফলতা মানে খুশি থাকা। এবার আপনাদের নিজের বলার মত একটা গল্পের জন্য লেগে থাকবো...

WE’VE BEEN FEATURED & QUOTED ON

Copyright © 2018-2020 || Your Own Story Web Team || All Rights Reserved.